ফারইষ্ট লাইফের বীমার মেয়াদপূর্তির টাকা পরিশোধে গড়িমসি; গ্রাহককে মারধর !

bankbima.xyz

 

নিউজ ডেস্কঃ জীবনবিমা যেন মরণ ফাঁদ হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রবাসী আমির হোসেনের কাছে। একটি জীবনবিমা কোম্পানির এক কর্মকর্তার কাছে টাকা জমান ১০ বছর ধরে। সে টাকার হিসাব চাইতে গেলে মারধরের স্বীকার হোন ফেনীর এই বাসিন্দা। মামলা করলেও আইন ফাঁকি দিয়ে ওই কর্মকর্তা দিব্যি ঘুরে বেড়াচ্ছে বলে অভিযোগ ভুক্তভোগী পরিবারের।

-বিজ্ঞাপন-

 

ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার সফরপুর গ্রামের আমির হোসেন দীর্ঘদিন বিদেশ থেকে দেশে ফেরেন ২০১১ সালে। তখন জীবন বীমা ফারইষ্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানীর কর্মকর্তা নুরুল আলম মিন্টুর প্রতারণার ফাদে পড়েন। আমির কে অতিরিক্ত লাভের প্রলোভন দেখিয়ে একটি বীমা করান। যার প্রিমিয়াম প্রতি বছর ২২০৬০/- টাকা, যার মেয়াদ ১০ বছর।

 

ভুক্তভোগী আমির হোসেন ভাষ্য মতে, মেয়াদপূর্তির ৪,২৪,০০০/- টাকা না দিয়ে মিন্টু তাকে ৭১,০০০/- টাকা কম দেয়। আর এই ৭১,০০০/- টাকার কথা জানতে চাইলে-ই তাকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি মারতে থাকে। মাথায়ও দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আঘাত করেছে। এই ঘটনায় মামলা হলেও গ্রেফতারের পর দিনই জামিনে বেড়িয়ে যায় মিন্টু।

 

অভিযুক্ত মিন্টুর মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করেন। এই অভিযোগের ব্যাপারে দায়সাড়া জবাব রয়েছে প্রতিষ্ঠানের অন্য কর্মকর্তাদেরও।

 

অভিযোগ রয়েছে, প্রতিষ্ঠানটিতে আমিরের মতো অনেকেই বীমার মেয়াদ পূর্তির টাকা না পেয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন টাকার জন্য।

 

উল্লেখ্য, প্রতিষ্ঠানটির সাবেক সিইও হেমায়েত উল্ল্যাহ-কে দেশের কোনো বীমা কোম্পানীতে নিয়োগে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে নির্দেশনা দিয়েছে ”বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রক সংস্থা (আইডিআরএ)”। সাবেক সিইও হেমায়েত উল্ল্যাহ-এর বিরুদ্ধে দূর্নীতি দমন কমিশন কর্তৃক তদন্ত চলমান।